সংবাদ শিরোনাম

ভূমি-সম্পত্তি মালিকানা বিরোধের জেরে বিবাদীর পক্ষ নেওয়ায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ ও সংবাদ সম্মেলন

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

দীর্ঘদিন ধরে দখলীয় মৌরশী সম্পত্তির মালিক দখলীয় দাবিদার সুজনধর ও রুপনধর একই এলাকা নিবাসী বিবাদী বেনু ধর,নয়ন ধর,খোকা ধর,উত্তম ধর ও অমল নাথের বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ভূমি দখলের অপচেষ্টা, পরিবারের উপর দফায় দফায় সন্ত্রাসী হামলা,প্রাণনাশের হুমকি অভিযোগে স্থানীয় চেয়ারম্যান সরওয়ার উদ্দীন চৌধুরী শাহীন বিবাদীর পক্ষ নিয়ে প্রকাশ্যে লোমহর্ষক অত্যাচার,অবিচার,চরম হেনস্তার স্বীকারসহ প্রয়োজনে প্রান নাশের হুমকির অভিযোগে করে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানায়।

২৭মে,বৃহস্পতিবার,সকাল ১১টায়,চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব,এস রহমান হলে সুজন ধর ও রূপন ধর ও তাদের বৃদ্ধ মা উক্ত সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। গ্রাম রায়পুর,বনীকপাড়া ৯নং ওয়ার্ড,১৩নং লেলাং ইউনিয়ন পরিষদ,ফটিকছড়ি,চট্টগ্রাম।উল্লেখিত একই এলাকা নিবাসী প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলন করে।

ভুক্তভোগীদের দাবি স্থানীয় চেয়ারম্যান বিবাদীর পক্ষ নিয়ে অন্যায় হীন স্বার্থ উদ্ধারে লক্ষ্যে প্রতক্ষ-পরোক্ষ নানাভাবে তাদের উপর নিপীড়ন-নির্যাতন চালানো হয়েছে।তারই ধারাবাহিকতায় দীর্ঘদিন ধরে অলিখিত স্টাম্পে স্বাক্ষর করার জন্য চাপ সৃষ্টি করে আসিতেছে।তারই চুড়ান্ত পর্বে ২৩ এপ্রিল,সন্ধ্যা ৭টায়, চেয়ারম্যানের নির্দেশে চৌকিদার হায়দার,চৌকিদার রিপন,চৌকিদার বেলাল,চৌকিদার এমদাদ কে আমাদের বাড়িতে পাঠায়। চৌকিদার হায়দার আমাকে দুই হাতসহ কোমরে বেঁধে ফেলে।আকষ্মিক আমার ভাই রূপন ধরকে এলোপাথাড়ি মারধর করতে থাকে।আমাকে রশি দিয়ে বাধা অবস্থায় রূপন ধরকে জুতা দিয়ে মারতে থাকে।কিল-ঘুষি,লাথি মারিতে মারিতে রশি দিয়ে বাধা অবস্থায়,সারা গ্রামের শতশত জনগনের সম্মুখে পশুর মত বেধে রাস্তা দিয়ে প্রকাশ্যে বর্বরতা নির্যাতন করিতে করিতে চেয়ারম্যানের বাড়িতে নিয়ে যায়।সেখানে বাউন্ডারির ভেতরে আমাকে ও রূপন ধরকে কামরাঙা গাছের সাথে বেঁধে ফেলে।বাধা অবস্থায় আমাকে,রূপধর ও আমার মাকে অলিখিত স্টাম্পে স্বাক্ষর করতে অসম্মতি জানালে আমার বৃদ্ধ মা ও উপস্থিত লোকের সামনে চেয়ারম্যান তার পরিহিত পায়ের জুতা খুলে আমাকে ও আমার ভাইকে এলোপাথাড়ি মারতে থাকে।যার ফলে হাতে,মূখে,বাম কানের নীচে নীলা নীলাফুলা জখম হয়। এভাবে বাধা অবস্থায় প্রায় ৩ ঘন্টা চেয়ারম্যান ও চৌকিদারসহ শারীরিক ও মানসিক বর্বরতা নির্যাতন চালায়।
বিবাদীর বিরুদ্ধে বিগত ২৪/১১/২০২০ইং তারিখে সি.আর ২৬৮/২০ মামলা দায়ে র করিলে বিবাদীগন উক্ত মামলা তুলে নেওয়ার জন্য ভয়ভীতিসহ,প্রাণনাশের হুমকি দেয়।এবং ভবিষ্যতেও আরও ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা হামলা-মামলা দিয়ে চরম বদলা নিবে বলে ও প্রাণনাশেরও হুমকি দেয়। এছাড়া বাদীর পূর্ব-পুরুষ রোপণকৃত সেগুন,জারুল,মেহগনিসহ মূল্যবান গাছ কেটে বিবাদীগন নিয়ে যায়। বাধা দেওয়ায় মারধর করে এব হুমকি দামকি দেয়।

বাদীর পক্ষের অভিযুক্ত ঘটনার বিষয়ে বিবাদীদের সাথে কাছে জানতে চাইলে বিবাদী বেনুধর ও উত্তম ধর বলেন আমদের বিরুদ্ধে বাদী সুজন ধর ও রূপন ধরের অভিযোগ সম্পুর্ন মিথ্যা ও বানোয়াট এবং তারা আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলাও করেছে।এলাকায় আসলে সত্য ঘটনা কি জানতে পারবেন।

চেয়ারম্যান মোঃ সরওয়ার উদ্দিন চৌধুরী শাহীনের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন বাদীপক্ষ তিনজনের নামে কোর্ট মামলা করেছে। কোর্ট মামলাটি সত্যতা যাচাইয়ের জন্য ইউনিয়ন পরিষদে পাঠিয়েছে। তাই বাদীপক্ষকে তিনবার নোটিশ দেওয়ার পরও নোটিশ গ্রহন করে নাই এবং এলাকায় থাকে না। বাড়িতে আছে খবর পেলে গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে ধরে নিয়ে আসি।এটা আমাদের গ্রাম আদালতের বিষয়। উক্ত ঘটনার বিষয়ে এলাকায় এসে সত্যতা জানার কথা বলেন।

ঘটনার বিষয়ে ফটিকছড়ি থানা ওসি মোঃ রবিউল ইসলাম কাছে গত ২৪ এপ্রিল বাদীপক্ষের দায়েরকৃত অভিযোগের ঘটনার বিষয়ে ২৮ মে জানতে চাইলে।তখন তিনি বলেন বিষয়টি তদন্তাধীন আছে।তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।