সংবাদ শিরোনাম

বাংলাদেশ পুলিশ এদেশ ও জাতির সাথে কখন ও বেঈমানী করেনি

 

শহিদুল ইসলাম:

বাংলাদেশ পুলিশ দেশ ও জাতির দুর্যোগের সময় জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে সব সময়। করোনা ভাইরাস মহামারীর সময় যখন মানুষ মানুষের কাছে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছিল সে সময় বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ দেশের জনগনের সেবায় নিজেদের উৎসর্গ করে প্রমাণ করে দিয়েছেন পুলিশ দেশ ও জাতির সাথে কখনো বেইমানি করে নাই। করোণা মহামারীর সময় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সামনে তার নিকটতম আত্মীয় স্বজন ও কাছে আসেনি করোণা ভাইরাসের ভয়ে। বাবার লাশের পাশে ছেলে আসেনি। লাশের জানাজা পড়তে নেই কোনো আত্মীয়-স্বজন নিজেদের জীবন রক্ষায়। অথচ বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছিল। আক্রান্ত রোগীদের হাসপাতালে পৌঁছে দেয়া লাশের দাফন সহ সকল সহযোগিতা করে এসেছে। নিজেদের উদ্যোগে দুর্যোগ মুহূর্তে খাবার ঔষধ সহ সার্বিক সহযোগিতা করেছিল। এদেশে মানবতার প্রতীক হিসেবে স্বর্নাক্ষরে লিখা থাকবে পুলিশের কথা। দোষে-গুণে মানুষ পুলিশ তার ব্যতিক্রম কিছু নয় হাজারো মানবতার সাথে হয়তো কিছু ভুল থাকতে পারে তা নিয়ে গোটা পুলিশ সংস্থার উপর বিতর্কের সৃষ্টি করে বিতর্কিত না করাই উত্তম। দীর্ঘ লকডাউন এর সময় এদেশের জনগণ প্রমাণ পেয়েছি পুলিশ জনগণের বন্ধু। করোনা ক্লান্তিময় সময় জনতার সেবা করতে গিয়ে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের পুলিশ কমিশনার সহ বেশকিছু থানা অফিসার ইনচার্জ ও পুলিশ সদস্য করুনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। তবুও জনতা পাশেই নিরলস ভাবে সেবা করে গিয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ। জনতার সেবক হিসেবে প্রমাণ করে দিয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগ।সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, দেশজুড়ে পুলিশ সদস্যের ৬ হাজার ২০৬ জন সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি—গণমাধ্যম ও জনসংযোগ) মো. সোহেল রানা বলেন, এ নিয়ে ৫৩ পুলিশ সদস্য করোনায় তাঁদের জীবন উৎসর্গ করলেন।